মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

গ্রাম আদালত বিধিমালা

গ্রাম আদালত বিধিমালা

গ্রাম আদালত বিধিমালা

গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

আইন,বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়

আইন ও বিচার বিভাগ

জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা

 

প্রঙ্গাপন

তারিখ, ৫শ্রাবণ ১৪২১বঙ্গাব্দ/২০জুলাই২০১৪

এস,আর,ও নং ১৯৪-আইন/২০১৪। আথিকভাবে অসচ্ছল,সহায়-সম্বলহীন এবং নানাবিধ আথ-সামাজিক কারণে বিচার প্রাপ্তিতে অসমথ ব্যক্তিগনকে আইনগত প্রদানের উদ্দেশ্য,জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা,আইনগত প্রদান আইন,২০০(২০০০সনের ৬নং আইন) এর ধারা ৭এর দফা(ক) এর বিধান মোতাবেক বিগত ২৪ মে, ২০০১ তারিখের প্রঙ্গাপন বাতিলক্রমে, নিম্নরুপ নীতিমালা প্রণয়ন করিল, যথা:-

১। সংক্ষিপ্ত শিরোনাম।-এই নীতিমালা আইনগত সহায়তা প্রদান নীতিমালা, ২০১৪ নামে অভিহিত হইবে।

 

২। আইনগত সহায়তা প্রাপ্তির যোগ্যতাঃ (১) এই নীতিমালার অধীন নিম্নবণিত ব্যক্তিগণ অঅইনগত সহায়তা পাইবার যোগ্য বলিয়া বিবেচত হইবেন,যথাঃ

ক) অসচ্ছল বা আথিকভাবে অসচ্ছল ব্যক্তি যাহার বাষিক গড় আয় সুপ্রীম কোটে আইনগত সহায়তা প্রদানের ক্ষেত্রে ১,৫০,০০০/-টাকা এবং অন্যান্য আদালতের ক্ষেত্রে ১,০০,০০০/-টাকরে উধ্বে নয়;

খ) কমে অক্ষম,আংশিক কমক্ষম, কমহীন কোন ব্যক্তি;

গ) বাৎসরিক ১,৫০,০০০/- টাকার উধ্বে আয় করিতে অক্ষম কোন মুক্তিযোদ্ধা; এবং

ঘ) কোন শ্রমিক যাহার বাষিক গড় আয় ১,০০,০০০/-টাকার উধ্বে নয়।

 

২। উপ-।অনুচ্ছেদ (১) এ যাহা কিছুই থাকুক না কেন, এই নীতিমালা অধীন নিম্নবণিত ব্যক্তিগনও আইনগত সহায়তা পাইবার যোগ্য বলিয়া বিবেচিত হইবেন, যথা:-

(ক) কোন শিশু;

(খ) মানব পাচারের শিকার কোন ব্যক্তি;

(গ) শারীরিক,মানসিক এবং যৌন নিযাতনের শিকার নারী ও শিশু;

(ঘ) নিরাশ্রয় ব্যক্তি বা ভবঘুরে;

(ঙ) ক্ষুদ্র জাতিসত্তা বা নৃ-গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ের কোন ব্যক্তি;

(চ) পারিবারিক সহিংসতার শিকার বা সহিংসতার ঝুঁকিতে রহিয়াছেন এইরুপ কোন সংক্ষুব্ধ;

(ছ) বয়স্ক ভাতা পাইতেছেন এইরুপ কোন ব্যক্তি;

(জ) ‍ভি জি ডিকাড ধারী কোন দুস্থ মাতা;

(ঝ) দুবৃত্ত কতৃক এসিড দগ্ধ নারী বা শিশু;

(ঞ) আদশ গ্রামে গৃহ বা ভুমি বরাদ্দপ্রাপ্ত কোন ব্যক্তি;

(ট) অসচ্ছল বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা এবং দুস্থ মহিলা;

(ঠ) প্রতিবন্ধী ব্যক্তি;

(ড) আথিক অসচ্ছলতার কারণে আদারতে অধিকার প্রতিষ্ঠা বা অত্মপক্ষ সমথন করিতে অসমথ ব্যক্তি;

(ঢ) বিনা বিচারে আটক এমন কোন ব্যক্তি যিনি আত্মপক্ষ সমথনের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনে আথিকভাবে অসচ্ছল;

(ণ) আদাল কতৃক আথিকভাবে অসহায় বা অসচ্ছল বলিয়া বিবেচিত ব্যক্তি;

(ত) জেল কতৃপক্ষ কতৃক আথিকভাবে অসহায় বা অসচ্ছল বলিয়া সুপাররিশকৃত বা বিবেচিত কোন ব্যক্তি; এবং

(থ) আইনগত সহায়তা প্রদান আইন, ২০০০ এর উদ্দেশ্য পুরণকল্পে, সংস্থা কতৃক সময় সময় চিহ্নিত আথিকভাবে অস্চ্ছল, সহা-সম্বলহীন, নানাবিধ আথ-সামাজিক এবং প্রাকৃতিক দুযোগের কারণে ক্ষতিগ্রস্থ কোন ব্যক্তি যিনি আথিক অসচ্ছলতার কারণে স্বীয় অধিকার প্রতিষ্ঠা বা মামলা পরিচালনায় অসমথ ।

 

৩। উপ-অনুচ্ছেদ (২) এর উদ্দেশ্য পুরণকল্পে-

(ক) ’শ্রমিক’ অথ মালিকের সংগা বহিভুত এমন কোন ব্যক্তি,শিক্ষানবিস হিসাবে নিযুক্ত ব্যক্তিসহ, যিনি বেতন বা পারিতোষিকের ভিত্তিতে কোনএলাকায় কোন শিল্প ইউনিটে দক্ষ, অদক্ষ, কায়িক,কারিগরী অথবা করণিক কায করিবার জন্য সরাসরি বা ঠিকাদারের মাধ্যমে বা অন্য কোনভাবে নিযুক্ত হইয়াছেন এবং উক্তরুপ নিযুক্তির শতে স্পষ্টভাবে ব্যক্ত থাকুক বা নাই থাকুক, উক্ত ব্যক্তি;     

 

বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত,জুলাই ২১,২০১৪

(খ) ‘শিশু’ অথ শিশু আইন, ২০১৩ এরধারা ৪ এ বণিত শিশু;

(গ) মানব পাচারের শিকার ব্যক্তি,অথ মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইন,২০১২ এর ধারা ৩ এ বণিত মানব পাচারের শিকার কোন ব্যক্তি

(ঘ) ’নিরাশ্রয় ব্যক্তি বা ভবঘুরে’ অথ ভবঘুরে ও নিরাশ্রয় ব্যক্তি (পুনবাসন) আইন, ২০১১ এর ধারা ২ এ বণিত নিরাশ্রয় কিংবা ভবঘুরে ব্যক্তি;

(ঙ) সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি’ অথ পারিবারিক সহিংসতা (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা) আইন, ২০১০ এ বণিত শিশু বা নারী যিনি পারিবারিক সম্পক থাকিবার কারণে পরিবারে অপর কোন সদস্য কতৃক পারিবারিক সহিংসতার শিকার হইয়াছেন বা হইতেছেন বা সহিংসতার ঝুকির মধ্যে রহিয়াছেন এইরুপ ব্যক্তি; এবং

(চ) প্রতিবন্ধি’ অথ প্রতিবন্ধি ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন, ২০১৩ এর ধারা ৩ এ বণিত প্রতিবন্ধিতাসম্পন্ন ব্যক্তি ।

 

৩। তথ্য সেবা গ্রহণ, ইত্যাদি।-অনুচ্ছেদ ২ এ বণিত বিধান সত্ত্বেও যে কোন ব্যক্তি, তাহার আথিক সামথ্য যাই হোক না কেন, সরকারী আইন আইনগত সহায়তা কমসুচীর আওতায় পরিচালিত আইনগত তথ্য সেবা গ্রহন, আইনগত পরামশ গ্রহন কিংবা বিকল্প পদ্ধতিতে বিরোধ নিষ্পত্তির সেবা গ্রহণের জন্য যোগ্য বলিয়া বিবেচিত হইবেন।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter